কম্পিউটার

১.প্রথম ডিজিটাল কম্পিউটার – MARK-1.
২.সবচেয়ে দ্রুতগতির কম্পিউটার – সুপার কম্পিউটার।
৩.হাইব্রিড কম্পিউটারের ইনপুট হলো-এনালগ প্রকৃতির।
৪.হাইব্রিড কম্পিউটারের আউটপুট হলো- ডিজিটাল প্রকৃতির।
৫.বিশ্বের দ্রুততম সুপার কম্পিউটার এখন- তিয়ানহে-২(চীন).
৬. ‘পরম’ নামে সুপার কম্পিউটার আবিষ্কার করে- ভারত।
৭.বাংলাদেশের একমাত্র সুপার কম্পিউটার – বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল ল্যাবে।
৮.বাংলাদেশের সুপার কম্পিউটারটি হলো- IBM RS/ 6000 SP.
৯.মেইনফ্রেম কম্পিউটার আকারে সুপার কম্পিউটার হতে- ছোট।
১০.প্রথম মিনি কম্পিউটার -পিডিপি-১
১১.প্রথম পারসোনাল কম্পিউটার – এলটেয়ার-৮৮০০।
১২.lap শব্দের মানে- কোল।
১৩.প্রথম ল্যাপটপ কম্পিউটার বাজারে আনে- এপসন কোম্পানি, ১৯৮১ সালে।
১৪.DOEL ল্যাপটপের প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান – টেশিস।
১৫.’টেশিস’ এর পূরনাংগ রুপ- টেলিফোন শিল্প সংস্থা লিমিটেড।
১৬.পামটপ হলো – হাতের তালুতে রেখে কাজ করা যায় এমন ছোট কম্পিউটার।
১. অত্যাধুনিক কম্পিউটারের দ্রুত অগ্রগতির মূলে রয়েছে- ইন্টিগ্রেটেড সার্কিট (আইসি);
২. কম্পিউটারের ব্রেইন হলো- Microprocessor
৩. আধুনিক কম্পিউটারের জনক বলা হয়-John Von Neumann; কম্পিউটারের জনক বলা হয়- চার্লস ব্যাবেজ কে;
৪. কম্পিউটারের আবিস্কারক- হাওয়ার্ড অ্যইকেন;
৫. আধুনিক মুদ্রণ ব্যবস্থায় ধাতু নির্মিত অক্ষরের প্রয়োজনীয়তা শেষ হওয়ার কারণ- ফটো লিথোগ্রাফী;
৬. কম্পিউটারের সকল কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করে- সেন্ট্রাল প্রসেসিং ইউনিট;
৭. কম্পিউটারের কেন্দ্রীয় পক্রিয়াকরণ অংশ গঠিত অভ্যন্তরীন স্মৃতি, গাণিতিক যুক্তি অংশ ও নিয়ন্ত্রণ অংশের সমন্বয়ে;
৮. কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ বা যন্ত্রকে বলা হয়- হার্ডওয়্যার;
৯. কম্পিউটার পদ্ধতির দু’টি প্রধান অঙ্গ- হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার।
১০. কম্পিউটারের সমস্যা সমাধানের উদ্দেশ্যে সম্পাদনের অনুক্রমে সাজানো নির্দেশাবলীকে বলা হয়- প্রোগ্রাম;
১১. কম্পিউটার ভাইরাস হলো একটি ক্ষতিকারক প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার।
১২. ইন্টারনেটের মাধ্যমে উন্নত চিকিৎসা পদ্ধতিকে বলা হয়- টেলিমেডিসিন;
১৩. নাফিস বিন সাত্তার- বাংলাদেশী সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ২০০৭ সালে অস্কার পুরস্কার অর্জন করেন;
১৪. কম্পিউটারের সফটওয়্যার বলতে বুঝায় এর প্রোগ্রাম বা কর্মপরিকল্পনা কৌশল;
১৫. মেশিনের ভাষায় লিখিত প্রোগ্রামকে বলা হয়- এসেম্বলি;
১৬. প্রোগ্রাম রচনা সবচেয়ে কঠিন মেশিনের ভাষায়;
১৭. বিশ্বব্যাপী বিপর্যয় সৃষ্টিকারী সিআইএইচ (চেং-ইয়ং-হো) ভাইরাস ২৬ এপ্রিল ১৯৯৯ তারিখে আক্রমণ করে।
১৮. তারবিহীন দ্রুতগতির ইন্টারনেট সংযোগের জন্য উপযোগী- ওয়াইম্যাক্স;
১৯. VSAT প্রযুক্তি ভূ-পৃষ্ঠ হতে স্যাটেলাইটে যোগাযোগ করার জন্য ব্যবহার করা হয়;
২০. প্রথম ল্যাপটপ কম্পিউটার- অসবর্ন-১ , এপসন কোম্পানি, ১৯৮১;।
২১. পুনরাবৃত্তিমূলক কাজে কম্পিউটার বেশি সুবিধাজনক;
২২. কম্পিউটারের ক্ষেত্রে তথ্য পরিবহনের জন্য পরিবাহী পথকে বলা হয়- বাস;
২৩. উপাত্ত গ্রহণ ও নির্গমণ বাসের নাম ডেটাবেস;
২৪. ওরাকল- একটি ডেটাবেস সফটওয়্যার;
২৫. ডেটাবেস সফটওয়্যার এর জন্মতারিখ হলো একটি ফিল্ড;
২৬. সর্বপ্রম ফটোশপ ব্যবহার হয় Apple Macintosh কম্পিউটারে।
২৭. Zoom out—image ছোট করা;
২৮. পাওয়ার অপেন- একটি অপারেটিং সিস্টেম;
২৯. প্রথম সফল কম্পিউটার বাজারে আসে ১৯৭৬ সালে।
৩০. কম্পিউটারের কোন বুদ্ধি বিবেচনা নেই;
৩১. কম্পিউটার ভাইরাস হলো একটি ক্ষতিকারক প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার।
৩২. মেকিনটোশ কম্পিউটারের সাহায্যে পৃথিবীর সব ভাষা ব্যবহারের প্র ম সুযোগ আসে;
৩৩. কমপ্লেক্স কম্পিউটারের নক্সা তৈরী করেন- ড. স্টিবিজ;
৩৪. ইউনিক্স অপারেটিং সিস্টেমে দুইশ’র অধিক কমান্ড ব্যবহার করতে হয়;
৩৫. মেশিন ল্যাঙ্গুয়েজ দুইটি সংকেত সমন্বয়ে গঠিত;
৩৬. প্রাচীন ব্যাবিলনে গণনার পদ্ধতি ছিল ২ ধরনের;
৩৭. হেক্সাডেসিমেল গণনার মৌলিক অংশ ১৬টি;
৩৮. বিশ্বের প্রথম ওয়েব ব্রাউজার- মোজাইক;
৩৯. প্রথম কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ- ফরট্রান;
৪০. লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমের জনক- ট্যাভেলড লিনাক্স;
৪১. পৃথিবীর প্রথম স্বয়ংক্রিয় গণনার যন্ত্র- মার্ক ১; যন্ত্রটি লম্বায় ছিল ৫১ ফুট দৈর্ঘ্য:
৪২. সবচেয়ে দ্রুতগতিসম্পনড়ব টেপ- ম্যাগনেটিক টেপ;
৪৩. ইন্টারপ্রেটার- অনুবাদক প্রোগ্রাম;
৪৪. কম্পিউটার নেটওয়ার্ক তিন ধরনের
৪৬. Gray scale ইমেজকে সাদা-কালোতে রূপান্তরিত করা যায় Threshold কমান্ড;
৪৭. বাংলাদেশে ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান-
প্রশিকানেট, গ্রামীণ সাইবার নেট, বাংলাদেশ অনলাইন;
৪৮. তথ্য প্রযুক্তি একটি সমন্বিত প্রযুক্তি;
৪৯. বাংলাদেশে অনলাইন ইন্টারনেট সেবা চালু হয়- ৪ জুন, ১৯৯৬ তারিখে;
৫০. বিশ্বের প্রথম কম্পিউটার নেটওয়ার্ক আরপানেট চালু হয় ১৯৬৯ সালে

Share this: